খবর ও সর্বশেষ সংবাদের জন্য চোখ রাখুন জনতার আওয়াজের পর্দায়

চুল দিয়ে তৈরি ক্যাপ যাচ্ছে চীনে

কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে অনেক হস্ত শিল্প। এখনো এমন কিছু কাজ রয়েছে যা হাতেই করতে হয়। তার মধ্যে অন্যতম হলো পরিত্যাক্ত চুল দিয়ে তৈরি হেয়ারক্যাপ বা পরচুলা।

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার কৈচাপুর ইউনিয়নের দর্শার পাড় গ্রামের প্রতিটা বাড়িতে চলছে পরচুলা বা হেয়ারক্যাপ তৈরির কাজ। বর্তমানে এখানে শতাধিক নারী নিয়মিত কাজ করছে। দিন দিন এ কাজে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ছে।

নারী উদ্যোক্তা ফাতেমা খাতুন জানান, তিনি এই গ্রামের ২৩০ জন নারীকে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। এই কাজে নিয়োজিত সকলেই নারী। কেউ স্কুল, আবার কেউ কলেজের শিক্ষার্থী। সকলেই গরীব পরিবারের। মাসে একজন প্রায় তিন থেকে সাত হাজার টাকা আয় করে থাকে।

তিনি জানান, সংসারের বাড়তি সময় কাজে লাগিয়ে অনেকে আবার নিজ ঘরে বসেই এই কাজ করছেন। এখান থেকে যা আয় হয় তা দিয়ে অনেকের সংসারে ফিরে এসেছে স্বচ্ছলতা। হেয়ার ক্যাপের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে চীনের বাজারে। প্রতিটি ক্যাপের মজুরি সাইজ অনুযায়ী ৬০০ থেকে ১৪০০ টাকা।

শ্রমিক সালমা জানায়, সংসারের কাজের ফাঁকে হেয়ারক্যাপ বানিয়ে যে টাকা পাই তা দিয়ে সংসার খরচে স্বামীকে সহযোগিতা করতে পারি। ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়া খরচ ও তাদের হাত খরচ দিতে পারি।

জানা যায়, নারীদের মাথা থেকে ঝরে যাওয়া চুল ফেরিওয়ালারা গ্রামে গ্রামে গিয়ে সংগ্রহ করে। সেগুলোকে ঢাকায় পাঠিয়ে চুল বাছাই এবং ওয়াশ করে আবার গ্রামে পাঠানো হয়। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের দরিদ্র প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নারীদেরকে এসব সরঞ্জাম দিয়ে ক্যাপ তৈরি করা হয়। পরে এগুলো চীন ও যুক্তরাষ্ট্রে রফতানি করা হয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা গুলে জান্নাত সেতু জানান, দর্শারপাড় গ্রামে হেয়ারক্যাপ তৈরির বিষয়ে তিনি অবগত আছেন। সকলের সহযোগিতা ও প্রচেষ্টা থাকলে অন্যান্য গ্রামে এর বিস্তার ঘটানো সম্ভব হবে। তিনি দরিদ্র নারীদের এ কাজে উৎসাহ দিয়েছেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.